Jio এবং Airtel কে বড় ধাক্কা, ভারতের দ্রুততম ইন্টারনেট পরিষেবা নিয়ে আসছে এই সংস্থা

বর্তমানে বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকার একেবারে উপরের দিকে রয়েছেন জনপ্রিয় সংস্থা Tesla এবং Space X এর কর্ণধার এলন মাস্ক। বর্তমানে এলনের মোট সম্পত্তির পরিমাণ 18 হাজার 500 কোটি মার্কিন ডলার। অ্যামাজনের প্রধান কর্মকর্তা জেফ বেজোসকে টক্কর দিয়ে তালিকার একেবারে শীর্ষে বর্তমানে এলন। আর এবারে এলন মাস্ক গোটা বিশ্বে ইন্টারনেট পরিষেবার দিকে একটি বিপ্লব নিয়ে আসার জন্য কোমর বেঁধে নেমেছেন। তবে, এতদিন অবধি ছিল শুধুমাত্র টেসলা এবং স্পেস এক্স, তবে এবারে এলন মাস্ক তার ঝুলি থেকে বের করলেন একটি মহাপ্ল্যান। যদি এই মহা প্ল্যান তিনি কার্যকর করা শুরু করেন, তাহলে বিপদে পড়বে ভারতের অগ্রণী টেলিকম সংস্থা Jio এবং Airtel।

বর্তমানে বিশ্বে যে কয়টি স্যাটেলাইট রয়েছে তার এক চতুর্থাংশ রয়েছে এলন মাস্ক এর অধীনে। এত পরিমান স্যাটেলাইট সত্ত্বেও তিনি প্রতিনিয়ত তার স্টারলিংক স্যাটেলাইট পাঠানোর পরিকল্পনা নিচ্ছেন মহাকাশে। তিনি যদি আরো স্যাটেলাইট পাঠানো শুরু করেন তাহলে মোবাইল সিগন্যাল আরো বেশি সক্রিয় হবে। এবং তার পরবর্তীতে অত্যন্ত দ্রুত গতির ইন্টারনেট আমরা ব্যবহার করতে পারব।

এই ইন্টারনেট পরিষেবা যদি চালু হয় তাহলে সুদূর গ্রামে-গঞ্জে যেখানে সিগন্যাল পৌঁছতে চায়না সেখানেও খুব ভালো মোবাইল সিগন্যাল পৌঁছাবে। পাশাপাশি, ভারতে বহু প্রতীক্ষিত 5G পরিষেবা নিয়ে আসার ক্ষেত্রে এই মহাপ্ল্যান অত্যন্ত কার্যকরী হবে। তবে শুধু এলন মাস্ক নন, এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার চেষ্টা করছেন বিশ্বের আরো একজন ধনী ব্যক্তি জেফ বেঞ্জো। তাই যদি এলন মাস্ক এত পরিমাণ স্যাটেলাইট পাঠিয়ে দিতে সক্ষম হন তাহলে কিন্তু ভারতের ক্ষেত্রে সেটা অনেক লাভবান হবে।

কিন্তু অন্যদিকে ভারতের অগ্রণী টেলিকম সংস্থা জিও এবং এয়ারটেল কিছুটা হলেও চাপের মুখে পড়তে চলেছে। জানা যাচ্ছে, যদি এই প্ল্যান কার্যকর হয় তাহলে কিন্তু খুব সহজে ভারতে 5G পরিষেবা চালু করা সম্ভব হবে। বর্তমানে ভারতের সবথেকে সস্তায় ইন্টারনেট প্রোভাইড করে Jio। তালিকায় ঠিক তার পরেই আছে Airtel। এবারে যদি এলন মাস্ক তার প্ল্যান নিয়ে ভারতে আসেন তাহলে এই দুটি টেলিকম সংস্থার ক্ষেত্রে ব্যাপারটি খুব একটা সুবিধার হবে না।